কৃষি তথ্য সার্ভিস (এআইএস) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২nd ডিসেম্বর ২০১৯

খুলনায় জিকেবিএসপি কৃষি উন্নয়ন প্রকল্পরে অগ্রগতি, পর্যালোচনা ও পরকিল্পনা র্কমশালা অনুষ্ঠতি


প্রকাশন তারিখ : 2019-12-02

 কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের গোপালগঞ্জ, খুলনা, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা ও পিরোজপুর কৃষি উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় দিনব্যাপী অগ্রগতি পর্যালোচনা ও পরিকল্পনা শীর্ষক কর্মশালা-২০১৯  ৩০ নভেম্বর সকাল ১০টায় খুলনার গল্লামারীস্থ মৎস্য বীজ উৎপাদন খামার অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়েছে। কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (সম্প্রসারণ) সনৎ কুমার সাহা। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ফসলের নিবিড়তা বাড়াতে সরকার নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। জমি পতিত রেখে ফসলের নিবিড়তা বাড়ানো সম্ভব না। উপজেলার ব্লক পর্যায় থেকে সঠিক তথ্যের মাধ্যমে জাতীয়  পরিকল্পনার গ্রহণ করে চাষাবাদের কৌশল  ঠিক করতে হবে। তিনি আরো বলেন, আমাদেরকে খোরপোষের কৃষি থেকে বেরিয়ে এসে বাণিজ্যিক কৃষিতে এগিযে আসতে হবে। মাঠ পর্যায়ে যে ফসল আবাদ করে কৃষক লাভবান হবে সে ফসল আবাদের পরিকল্পনা করে কৃষককে লাভবান করতে পারলে আমাদের কৃষি আরো অনেকদুর এগিয়ে যাবে। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, খামারবাড়ি, ঢাকার সরেজমিন উইং এর পরিচালক কৃষিবিদ চন্ডী দাস কুন্ডু এ কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রদানকালে কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (গবেষণা) কমলারঞ্জন দাশ বলেন, এসডিজি ও ডেল্টা প্লান বাস্তবায়ন করতে হলে কৃষি উৎপাদন বাড়ানোর কোন বিকল্প নেই। উৎপাদন বাড়াতে সঠিক পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে। উৎপাদন বাড়ানোর পাশাপাশি আমাদের মাটির স্বাস্থ্যের দিকে নজর দিতে হবে। মাঠ ফসলের পাশাপাশি আমাদের দেশী ফল ও সব্জির আবাদ বাড়াতে কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করতে হবে। তিনি আরো বলেন, শস্য পর্যায়ে কোন জমি পতিত রাখা যাবে না। শস্য পর্যায় ও মাটির স্বাস্থ্য রক্ষায় ডাল ফসল আবাদের দিকে আমাদের নজর দিতে হবে। বিভিন্ন গবেষণা ও কৃষি সম্প্রসারণের মধ্যে সর্ম্পকোন্নায়নের মাধ্যমে আমাদের সামগ্রিক কৃষির উৎপাদন অনেক বাড়বে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। সভাপতির বক্তব্যে সরেজমিন উইং এর পরিচালক বলেন, নিজের কর্ম এলাকা সম্পর্কে সঠিক ধারনা নিয়ে কর্মপরিকল্পনা করে ফসলের নিবিড়তা বাড়াতে হবে। গবেষণার মাধ্যমে দক্ষিণাঞ্চলে লবণাক্ততা সহনশীল ফসলের আবাদ বৃদ্ধি করতে পারলে কৃষি উৎপাদন অনেকদুর এগিয়ে যাবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো বক্তব্য দেন, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর খুলনা অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক কৃষিবিদ কাজী আব্দুল মান্নান, ফরিদপুর অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক কৃষিবিদ পার্থ প্রতীম সাহা ও বরিশাল অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক কৃষিবিদ মোঃ আফতাব উদ্দিন। প্রকল্পের অগ্রগতি ও পরিকল্পনা বিষযে পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন করেন, ডিএই খুলনার উপপরিচালক কৃষিবিদ পংকজ কান্তি মজুমদার, সাতক্ষীরার উপপরিচালক কৃষিবিদ অরবিন্দ বিশ্বাস, গোপালগঞ্জের উপপরিচালক কৃষিবিদ রমেশ চন্দ্র ব্রষ্ম । অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন, প্রকল্প পরিচালক কৃষিবিদ আলমগীর বিশ্বাস। ‍উপ প্রকল্প পরিচালক কৃষিবিদ মোঃ তৌহিদীন ভূইয়া অনুষ্ঠানটি সঞ্চলনা করেন। দিনব্যাপী এ কর্মশালায় প্রকল্পভুক্ত জেলা ও উপজেলার কৃষি অফিসারবৃন্দ, বিএডিসি, এসসিএ, এসআরডিআই, বিএআরআই, এআইএস ও কৃষি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটসহ কৃষি সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শতাধিক কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

     সংবাদদাতাঃ মোঃ আবদুর রহমান,এআইসিও,কৃতসা,খুলনা।

 


Share with :

Facebook Facebook